বিজেপি নেতা আক্রান্ত হওয়ায় চা শ্রমিকদের হাসিমারা থানা ঘেরাও

posted Jun 16, 2017, 9:21 AM by chittasen biswas   [ updated Jun 16, 2017, 9:40 AM by news reporter ]
চা শ্রমিকদের হাসিমারা থানা ঘেড়াও
স্টাফ রিপোর্টার  ১৬ই জুন ২০১৭,
হাসিমারা
সোমবার ও মংগলবার ১২ ও ১৩ই জুন যৌথমঞ্চের (জয়েন্ট ফোরাম) ডাকে তরাই ডুয়ার্সের চা শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরীর দাবিতে প্রায় ৯৮% বাগানে স্বতঃস্ফুর্ত ধর্মঘট পালিত হয়| বিরোধী তৃণমূল কংগ্রেস ও রাজ্য পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে তীব্র বাধা ও দমন পীড়ন সত্বেয় উক্ত দুই দিন ব্যাপী ধর্মঘট কিছু ক্ষেত্র ছাড়া প্রায় সমস্ত ক্ষেত্রে সফল হতে দেখা গিয়েছে|

জয়েন্ট ফোরামের অন্তর্গত রাজনৈতিক দল গুলির ধর্মঘটে অংশ গ্রহণ কারী বহু সংখ্যক নেতা ও কর্মী জলপাইগুড়ী, আলিপুরদুয়ার, নাগ্রাকাটা, কালচিনি, হাসিমারা, চুয়াপাড়া ইত্যাদি স্থানে পুলিশের কাছে গ্রেপ্তার বরণ করেন|

কিছু কিছু স্থানে তৄণমূল কংগ্রেসের মারমুখী নেতা ও কর্মীদের বিরোধিতায় কিছু অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে| এই ঘটনা গুলির মধ্যে উল্লেখযোগ্য ঘটনা ঘটে পুরাতন হাসিমারাতে| মিছিল ও পিকেটিং এর ফাঁকে বিজেপির ৯ নং মন্ডলের সভাপতি সন্দীপ এক্কা কয়েকজন দলীয় কর্মীর সঙ্গে নিকটস্থ একটি চায়ের দোকানে চা পান করছিলেন সেই সময় তৄণমূল কংগ্রেসের নেতা কালচিনি পঞ্চায়েত সমিতি সদস্য বীরেন কুজুর ও আরও কয়েকজন তৄণমূল কংগ্রেসের কর্মীরা সন্দীপ এক্কার উপর হামলা করে| হাসিমারা পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে| আহত অবস্থায় তাকে লতাবাড়ী হাসপাতাল ও পরে আলিপুরদুয়ারে চিকিত্সার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়|

হামলার খবর ছড়িয়ে পড়ায় সাতালী, সুভাষিনি, মালঙ্গী, ভার্নাবাড়ী ইত্যাদি বাগান গুলি থেকে স্ত্রী পুরূষ নির্বিশেষে প্রায় ২৫০০ বিজপির চা শ্রমিক সদস্য দু’ই ঘন্টা যাবত হাসিমারা থানা ঘেরাও করে রাখেন| দীর্ঘ আলোচনার প’র আলিপুরদুয়ার জেলার পুলিশ আধিকারিক ডিএসপি বৈদ্যনাথ সাহের আশ্বাসে ঘেরাও উঠিয়ে নেওয়া হয়| বিজেপির শ্রমিক সংগঠন বি.টি.ডব্লু.ইউএর তরফ থেকে এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে হাসিমারা থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়|

Comments